ফাদার স্ট্যান স্বামীর মৃত্যু একটি প্রাতিষ্ঠানিক হত্যা

ফাদার স্ট্যান স্বামী আর নেই। জেসুইট পাদ্রী আদিবাসীদের অধিকারের লরায়ে জীবন উৎসর্গ করেছিলেন। বীমা কোরেগাও মামলায় মিথ্যা অজুহাতে এন আই এ ফাদারকে গ্রেপ্তার করে । ৮.১০.২০২০ থেকে ফাদার মুম্বাইয়ের তালজোলা জেলে বন্দী ছিলেন। তিনি পারকিনসন স হ  বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। তিনি কাপ না গ্লাস ধরে জল খেতে পারতেন না। জেল অথরিটি জল খেতে সিপার অস্বীকার করায় তিনি কোর্ট এ যেতে বাধ্য হন এবং কোর্ট। এন আই এ কে, না কে ২০দিনের মধ্যে সিপার দিতে আদেশ দেওয়া সত্ত্বেও সিপার নাদেওয়াতে জন আন্দোলনের চেপে সিপার দিতে বাধ্য হয়।

ফাদার স্ট্যান স্বামীর স্বাস্থ্যের অবনতি হতে থাকে জেলার পরিবেশের জন্য। তিনি কভিদ এ আক্রান্ত হলে বোম্বে হাই

কোর্টে একটি হলফনামা পেশ করে মুম্বাইয়ের হলি ফ্যামিলি হসপিটাল ভরতি প্রার্থনা করেন। এই মামলা শুনানির সময় ফাদার ভিডিও ট ডিভিশন বেঞ্চ এর সঙ্গে কথাপো কথনে তিনি বলে ছিলেন তার শরীর দ্রুত খারাপ হয়ে যাচ্ছে। তিনি আগে যে সব ব্যক্তিগত কাজ নিজে করতে পারতেন এখন অন্যের সাহায্যে করতে হয়।

মোদী শাহ সরকারের যে কোনো বিরোধী কণ্ঠ স্বর রুদ্ধ করতে বীমা করিগাও মামলা একটি হতিয়ার। ইউ এ পি এ আইনে কোনো আইনি নীতি নেই। আজামিন যোগ্য জেল। তলজলা জেল অথরিটি ফাদারকে নানাভাবে নির্যাতন করে এমন কি জল খেতে  ফাদারকে সিপার দিতে অস্বীকার করে।   

এক্ষেত্রে আদলত ফাদারের সাংবিধানিক অধিকার রক্ষায় ব্যর্থ হয়। বিচারক এ পি শাহ বলেছেন:The only institution capable of stopping death of democracy is aiding it.

AILAJ ফাদার স্ট্যান স্বামীর শোকাহত। তার আত্মার শান্তি কামনা করে এবং ইউ এ পি এ আইন বাতিলের দাবিতে এবং  এই আইনে বন্দী সব সমাজ কর্মী এবং আইনজীবীদের মুক্তি দাবি করছে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

Create your website with WordPress.com
Get started
%d bloggers like this: